ডেস্ক রিপোর্ট

২ জুলাই ২০২৪, ৯:১০ অপরাহ্ণ

দুর্নীতিবাজ, ঋণখেলাপী, অর্থ পাচারকারীদের গ্রেফতারে দাবিতে সিলেটে বাম জোটের বিক্ষোভ

আপডেট টাইম : জুলাই ২, ২০২৪ ৯:১০ অপরাহ্ণ

শেয়ার করুন

অধিকার ডেস্ক: দুর্নীতিবাজ, কালোটাকার মালিক, ঋণখেলাপী, অর্থ পাচারকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে আজ ০২জুলাই মঙ্গলবার দুপুর ২টায় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মুখে সিলেটে বাম গণতান্ত্রিক জোটের বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

দেশব্যাপী কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সিলেটে কর্মসূচি পালিত হয়।

বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলার সমন্বয়ক ও বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগ সিলেট জেলার সভাপতি সিরাজ আহমেদ এর সভাপতিত্বে এবং বাসদ সিলেট জেলার সদস্য সচিব প্রণব জ্যোতি পালের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, কমিউনিস্ট পার্টি সিলেট জেলার সভাপতি সৈয়দ ফরহাদ হোসেন, বাসদ সিলেট জেলার আহ্বায়ক আবু জাফর, কমিউনিস্ট পার্টি সিলেট জেলার সাবেক সভাপতি এড.আনোয়ার হোসেন সুমন, বাসদ (মার্কসবাদী) সিলেট জেলার সদস্য সঞ্জয় কান্ত দাস।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন কমিউনিস্ট পার্টি সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান, বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগ সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক ডা.হরিধন দাশ, বাংলাদেশ চা শ্রমিক ফেডারেশন সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক অজিত দাশ, উদীচী সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল মিন্টু, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট সংসদের আহ্বায়ক মনীষা ওয়াহিদ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট সিলেট নগর শাখার সাধারণ সম্পাদক বুশরা সুহেল, ব্যাটারি চালিত সংগ্রাম পরিষদের সহ সভাপতি মঞ্জু আহমদ প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, গোটা দেশ আজ দুর্নীতিবাজ, কালোটাকার মালিক, ঋণখেলাপী, অর্থ পাচারকারীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। সরকার মুখে দুর্নীতির বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করলেও কার্যত এদের প্রশ্রয় দিচ্ছে।গ্লোবাল ফিনান্সিয়াল ইনটিগ্রেটি মতে প্রতি বছর দেশ থেকে বাণিজ্যের মাধ্যমে প্রায় ৮০হাজার কোটি টাকা পাচার হয়। সিপিডি বলছে, ২০০৮ থেকে ২৩ সালে ১৯টি ব্যংক থেকে ২৪টি কেলেঙ্কারির মাধ্যমে ৯২হাজার কোটির বেশি টাকা লোপাট হয়েছে। এই দূনীর্তির চিত্র আরো ভয়াবহ। পুলিশের সাবেক আইজি বেনজির কান্ড, সেনা প্রধান আজিজ কান্ড, সর্বশেষ এনবিআরের কর্মকর্তা মতিউর কান্ডে দূর্নীতির বিষয়গুলি স্পষ্ট। সরকার এদের বিরুদ্ধে কার্যকর কোন পদক্ষেপই গ্রহণ করেনি,উল্টো দেশত্যাগের সুযোগ করে দিয়েছে। গায়ের জোরে ক্ষমতায় থাকতে গিয়ে আওয়ামী সরকার আমলা,প্রশাসন ও বিভিন্ন বাহিনীর উপর নির্ভর করছে। নিজের ক্ষমতা সুরক্ষিত করতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিকে অবৈধ সুবিধা দিতে গিয়ে এই দূর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিকীকরণ করছে। এমন কি,বাজেটে কালোটাকাকে সাদা করার সহজ সুযোগ দিয়ে দূর্নীতি-লুটপাটকে বৈধতা দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি সিলেটে চিনি কান্ডে সরকার দলীয় নেতা কর্মীদের যুক্ততা এ বিষয়কে আরো উন্মোচিত করে।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ অরোও বলেন, অবিলম্বে এ সকল দূর্নীতিবাজ,কালোবাজারি,সম্পদ পাচারকারীদের গ্রেফতার, আইনানুসারে শাস্তি, পাচারকৃত টাকা উদ্ধার করে জনকল্যাণে কাজে লাগাতে হবে। নেতৃবৃন্দ, এ সকল দাবিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার দাবি জানান।

শেয়ার করুন