ডেস্ক রিপোর্ট

১ জানুয়ারি ২০২৪, ১১:১০ অপরাহ্ণ

জনমত উপেক্ষা প্রহসনের নির্বাচনের নাটক মঞ্চস্থ করতে যাচ্ছে: বাম জোট

আপডেট টাইম : জানুয়ারি ১, ২০২৪ ১১:১০ অপরাহ্ণ

শেয়ার করুন

অধিকার ডেস্ক: একতরফা নির্বাচনী তফসিল বাতিল, সরকার ও আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ, নির্বাচনকালীন নির্দলীয় নিরপেক্ষ তদারকি সরকারের অধীনে নির্বাচন এবং সভা-সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলা শাখার উদ্যোগে গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। ‌

সোমবার (১ জানুয়ারি) বিকাল সাড়ে চারটায় আম্বরখানা-দর্শনদৈউড়ি এলাকায় গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণকালে নেতৃত্ব দেন বাম গণতান্ত্রিক জোট সিলেট জেলা সমন্বয়ক, সিপিবি সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান, সিপিবি জেলা সভাপতি সৈয়দ ফরহাদ হোসেন,বাসদ (মার্ক্সবাদী) জেলা আহ্বায়ক উজ্জল রায়, বাসদ জেলা আহ্বায়ক আবু জাফর, বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের জেলা সভাপতি সিরাজ আহমদ, বাসদ জেলা সদস্য সচিব প্রণব জ্যোতি পাল, বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের ডাঃ হরিধন দাশ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট মহানগর শাখার সভাপতি সন্জয় কান্ত দাশ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির স্কুল বিষয়ক সম্পাদক বিশ্বজিৎ নন্দী, ছাত্র ইউনিয়ন জেলা সভাপত মনীষা ওয়াহিদ ও সাধারণ সম্পাদক মাশরুক জলিল, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের জাহেদ আহমদ প্রমূখ।

গণসংযোগকালে নেতৃবৃন্দ বলেন,বর্তমান সরকার তার ফ্যাসিবাদী দুঃশাসনকে আরও দীর্ঘায়িত করতে সকল বিরোধী রাজনৈতিক দল, অর্থনীতিবিদসহ সর্বস্তরের গণতন্ত্রকামী জনগণের মতামতকে উপেক্ষা করে তার আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনকে দিয়ে আগামী ৭ জানুয়ারি একতরফা প্রহসনের নির্বাচনী নাটক মঞ্চস্থ করতে যাচ্ছে।

সকল বিরোধী দলের অংশগ্রহণ ব্যতিরেকে স্বতন্ত্র-ডামি প্রার্থী দাঁড় করিয়ে সাজানো নির্বাচনের প্রতি দেশবাসীর কোনই আগ্রহ বা আকর্ষণ তৈরি করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়ে এখন সরকারী দলের নেতাকর্মীরা প্রলাপ বকতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যে নিজ দলের গঠনতন্ত্র লংঘন করে স্বতন্ত্র প্রার্থী দাঁড় করিয়ে দলীয় মনোনীত, স্বতন্ত্র, ডামি, ১৪ দল, জাতীয় পার্টির প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ-সংঘাত চরম আকার ধারণ করেছে। এ পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপানোর জন্য দুর্ভিক্ষ, গুপ্তহত্যার ষড়যন্ত্র ইত্যাদি নানা মিথ্যাচার করে চলেছে। সরকারের এই একগুয়েমী মনোভাবের ফলে দেশ এক চরম নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির দিকে যাচ্ছে। যা দেশের গণতন্ত্র, ভোটাধিকার ও গণতান্ত্রিক ভবিষ্যতের জন্য মোটেই সুখকর নয়।

নেতৃবৃন্দ ৭ জানুয়ারি প্রহসনের নির্বাচন বর্জনের জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

শেয়ার করুন